Academic Calendar of Department of English

ইংরেজী বিভাগ (১৯২১)

বিশ্ববিদ্যালয়ের সূচনালগ্নে জন্ম নেয়া কুড়িটি বিভাগের মধ্যে অন্যতম ইংরেজী বিভাগের জন্ম ১৯২১ সালের পহেলা জুলাই। সেই থেকে ক্রমবর্ধমান এই বিভাগটিতে বর্তমানে কর্মরত আছেন ৩৬ জন পূর্ণকালীন, ১ জন প্রফেসর এমিরিটাস, ১ জন সংখ্যাতিরিক্ত এবং ৩ জন খণ্ডকালীন শিক্ষক। বিভাগের ইতিহাসকে ব্রিটিশ, পাকিস্তান আর স্বাধীনতা-উত্তর তথা বাংলাদেশি এই তিনটি পর্বে ভাগ করে দেখা যায়। ব্রিটিশ পর্বে, প্রফেসর সি. এল. রেন (যিনি পরবর্তীকালে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপনা করেন) বিভাগটির প্রথম বিভাগীয় প্রধান নিযুক্ত হন (১৯২২)। রেন সহ পর পর আরও কয়েকজন সুযোগ্য বিভাগীয় প্রধান আন্তরিকতা নিষ্ঠা আর মেধায় বিভাগটিকে সাফল্যের সাথে এগিয়ে নিয়ে যান। অল্পকালের মধ্যেই বিভাগের ছাত্রছাত্রী সাহিত্য-সংস্কৃতি অঙ্গনের পাশাপাশি রাজনীতি ও রাষ্ট্রপরিচালনায়ও মূল্যবান অবদান রাখতে শুরু করেন।

১৯৪৭ সালের ভারত বিভক্তির সময় প্রাজ্ঞ শিক্ষকমণ্ডলীর অনেকেই দেশ ত্যাগ করলে প্রফেসর এ. জি. স্টকের মতো অধ্যাপকগণের যোগদান বিভাগের ঐতিহ্যকে অক্ষুন্ন রাখে। এ পর্বেও বিভাগের স্নাতকরা স্বদেশি সাহিত্যে এবং দেশের সর্বাঙ্গীণ উন্নয়নে অবদান রাখেন। এঁদের মধ্যে চল্লিশের দশকের বুদ্ধদেব বসু এবং পঞ্চাশের দশকের মুনীর চৌধুরী বাংলা সাহিত্যে এক নতুন মাত্রা যোগ করেন।

সত্তর এবং আশির দশকের বিভাগীয় শিক্ষকদের মধ্যে অধ্যাপক কবীর চৌধুরী, অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, অধ্যাপক আহসানুল হক, অধ্যাপক হুসনে আরা হক, এবং অধ্যাপক রাজিয়া খান আমিন প্রমুখের নাম বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য। এঁরা প্রত্যেকেই দেশের সামাজিক-রাজনৈতিক এবং সাহিত্যাঙ্গনে মূল্যবান অবদান রাখেন। অধ্যাপক কবীর চৌধুরী অবসর গ্রহণের পর থেকে আমৃত্যু খন্ডকালীন শিক্ষক হিসেবে বিভাগে কর্মরত ছিলেন এবং অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী বর্তমানে প্রফেসর এমিরিটাস হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। উভয়েই বাংলা ও ইংরেজি দুই ভাষাতেই সিদ্ধহস্ত লেখক। সদ্য অবসরে যাওয়া অধ্যাপক সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম, অধ্যাপক ফকরুল আলম এবং অধ্যাপক কায়সার মোঃ হামিদুল হক দেশের শিক্ষা ও সংস্কৃতি জগতে নিরবছিন্নভাবে বিচরণ করে চলেছেন।

বিভাগ থেকে প্রতি বছর বের হয় সমালোচনামূলক প্রবন্ধ, অনুবাদ, গ্রন্থ-সমালোচনা, সাক্ষাৎকার এবং সৃষ্টিশীল লেখনী সমৃদ্ধ পত্রিকা Spectrum (Journal of the Department of English)।এ ছাড়া বিভাগ কর্তৃক প্রায়ই সেমিনার ও আন্তর্জাতিক কনফারেন্স আয়োজন করা হয়। আয়োজিত সেমিনার ও আন্তর্জাতিক কনফারেন্সে উপস্থাপিত প্রবন্ধসমূহ বিভাগ কর্তৃক পুস্তক আকারে প্রকাশিত হয়। নিম্নলিখিত কনফারেন্স পুস্তকগুলো প্রকাশিত হয়েছে:

1.       Other Englishes: Essays on Commonwealth Writings, UPL, 1990

2.       Infinite Variety: Essays on Women in Society and Literature, UPL, 1994

3.       Re-appraising Marlowe: Quartercentenary Symposium, Department of English, 1995

4.       Colonial and Postcolonial Encounters, UPL, 1999

5.       Revisioning English in Bangladesh, UPL, 2001

6.       Hemingway: A Centenary Tribute, University of Dhaka, 2007

7.       Centennial Essays on Ibsen, Department of English, 2008

১৯৭১ সালের মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে বিভাগের শিক্ষক এবং ছাত্রদের অনেকেই প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষভাবে অংশগ্রহণ করেন। এঁদের মধ্যে অধ্যাপক কায়সার মোঃ হামিদুল হক-এর নাম বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য। অধ্যাপক জ্যোতির্ময় গুহঠাকুরতা ২৫-এ মার্চের কালরাত্রিতে শহিদ হন, বিভাগের সিনিয়র লেকচারার জনাব রাশীদুল হাসান ১৪ই ডিসেম্বর আল-বদরদের দ্বারা অপহৃত হয়ে শহিদ হন। এঁদের দুজনের নামানুসারে বিভাগীয় ইংরেজি সাহিত্য সেমিনার লাইব্রেরির নামকরণ হয়েছে। বিভাগের ছাত্রদের মধ্যেও অনেকে যুদ্ধে শহিদ হন, এঁরা হলেন:

১.       বিধান চন্দ্র ঘোষ

২.      কার্তিক চন্দ্র শীল

৩.      শেখ আবদুস সালাম

৪.      ননী গোপাল ভৌমিক

৫.      নাসিম মহসিন

৬.      আলাউদ্দীন মাহমুদ জাহীন

৭.      আতিকুর রহমান

৮.      শিশুতোষ দত্ত চৌধুরী

এঁদের সকলের স্মৃতি অম্লান করে রাখতে ২০০৮ সালে তদানীন্তন চেয়ারম্যান ড. খোন্দকার আশরাফ হোসেন-এর উদ্যোগে বিভাগে সেমিনারের দেয়ালে একটি কাঠের স্থাপনা শিল্প প্রতিষ্ঠা করা হয়।

১৯৯৮ সাল থেকে ইংরেজি বিভাগ ইংরেজি বিষয়ে চার বছর মেয়াদি বি.এ.অনার্স ডিগ্রি প্রদান করে আসছে। এছাড়াও English Literature এবং Applied Linguistic and ELT - এই দুটি বিষয়ে এক বছরের মাস্টার্স ডিগ্রি প্রদান করা হয়। এর পাশাপাশি এম. ফিল এবং পি-এইচ.ডি. ডিগ্রিও প্রদান করা হয়ে থাকে। এই বিভাগের আরও একটি বৈশিষ্ট্য হলো প্রায় প্রতি বছরই এখানে বিদেশি ছাত্র-ছাত্রী পড়া-লেখা করে।  

বিশ্ব ব্যাংকের অর্থায়নে এবং বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের সহযোগিতায় এবং HEQEP (Higher Education Quality Enhancement Project)-এর অধীনে Improvement and Innovation in English Teaching-Learning শীর্ষক ২-বছর মেয়াদি প্রকল্পটি ২০১১ সালে ড. ফকরুল আলমের নেতৃত্বে চালু হয় এবং তা প্রশংসিতভাবে সম্পন্ন হয়েছে। এর আওতায় বিভাগের স্নাতক শ্রেণির দুটি কোর্সের জন্য দুটি পাঠ্যপুস্তক প্রকাশিত হচ্ছে এবং ৪৫ টি কম্পিউটার ক্রয় করা হয়েছে। উক্ত প্রকল্পটি ২০১৩ সাল থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমোদনক্রমে Centre for English Teaching and Resesarch (CETR) নামে বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি গবেষণা কেন্দ্র হিসেবে প্রতিষ্ঠা লাভ করে। অধ্যাপক তাহমিনা আহমেদ কেন্দ্রটির পরিচালক হিসেবে নিয়োজিত আছেন।

২০১৩ সালে বিভাগ থেকে British Council প্রদত্ত INSPIRE Project, DEWS (Department of English Writing Service) অনুমোদন পেয়েছে। প্রকল্পটি অধ্যাপক তাহমিনা আহমেদ-এর নেতৃত্বে যুক্তরাজ্যের Manchester University-Gi সাথে যৌথভাবে চালু রয়েছে।

Department of English

The Department of English at the University of Dhaka has a long and distinguished history. It was one of the first twenty departments the university started with on July 1, 1921. Today, it is a nationally reputed centre for English studies incorporating Literature, ELT and Cultural Studies, academic excellence and literary creativity. The Department is presently situated on the first floor of the Arts building. It has a dedicated multimedia room and a computer lab for providing technical supports. It has two seminar libraries: the Guhathakurata-Rashid Seminar is the Literature library and the Abi Md. Nizamul Huq Seminar is the language library. The students have to pay a small fee in order to access the library and lab facilities.

The Department offers courses for four-year B.A. Honors degrees in English. At the M.A. level students can specialize in either Applied Linguistics and ELT or English Literature. The Department also offers M. Phil and Ph.D. degrees. Many foreign students from Korea, Nepal, Iran, Iraq, Turkey, Libya, Palestine and Somalia come to the department to study English. The Department has a peer-reviewed journal – Spectrum which publishes scholarly articles, book reviews, translations, interviews and creative pieces. Spectrum welcomes contributions from the teachers, alumni and students.

There are several financial aid programs and stipends available for the meritorious as well as the needy students. They are provided by the alumni and different donors. The department regularly arranges workshops, seminars, memorial meetings and cultural programmes. The students join in extracurricular activities like sports, debating and public speaking and various cultural programmes.

The students and teachers of the Department of English contributed in making the nation’s cultural and literary landmarks. A student of this Department, Lila Nag was the first woman graduate of Dhaka University. Famous literary geniuses like Budhadev Bose and Munier Chowdhury have graduated from the department. The teachers and the students played a glorious role in the War of Liberation in 1971. Professor Dr. Jyotirmoy Guhathakurata and senior lecturer Mr. Rashidul Hasan as well as many students were martyred in the war. The Literature Seminar literary has been named the Guhathakurta-Rashid Seminar in the memory of the two martyars. In 2008, Profssor Dr. Khondakar Ashraf Hossain who was the Chair of the department took the initiative to build a wooden installation on the wall of the seminar library.

Presently there are thirty-six distinguished full-time scholars and faculty members, one Professor Emeritus and three part-time teachers working at the department. Most of them are specialized from reputed foreign universities in the areas of British, American, Caribbean and Postcolonial literature. National Professor Kabir Chowdhury, after his retirement, became a part-time teacher in the department. He continued working here till his demise. Professor Serajul Islam Choudhury is the present Professor Emeritus of the department. Both of them have been experts in Bangla and English language and literature. Professor Syed Manzoorul Islam, Professor Fakrul Alam and Professor Kaiser Md. Hamidul Haq are following their footsteps in the cultural and literary arenas of the country. Among them Professor Kaiser Md. Hamidul Haq had actively participated in our glorious liberation war.

Recently with the financial aid and support of the World Bank and the University Grants Commission of Bangladesh, and under the supervision of HEQEP (Higher Education Quality Enhancement Project) a two-year long project ‘Improvement and Innovation in English Teaching-Learning’ was started in 2011. Professor Dr. Fakrul Alam was in charge of the project as the Sub-project Manager. His careful monitoring and management made it a highly acclaimed venture on its completion. The University of Dhaka further recommended the project to be turned into a research centre in 2013. It is now the Centre for English Teaching and Research (CETR).


ইংরেজী বিভাগ

(১লা জানুয়ারি ২০১৮-৩১শে ডিসেম্বর ২০১৮)

ক্রমিক নং

 শ্রেণি, সেমিস্টার, কোর্স পরীক্ষার নাম

শিক্ষাবর্ষ

ক্লাস শুরু হওয়ার তারিখ

ক্লাস শেষ  হওয়ার তারিখ

মিড-টার্ম পরীক্ষার তারিখ

ফিল্ড ওয়ার্ক

চূড়ান্ত পরীক্ষা

মন্তব্য

আরম্ভের তারিখ

 শেষ হওয়ার তারিখ

১.

ব্যাচ ১২: ১ম বর্ষ ১ম সেমিস্টার

২০১৭-১৮

০২-০১-১৮

 

০১-০৩-১৮

 

০২-০৫-১৮

 

 

ব্যাচ ১২: ১ম বর্ষ ২য় সেমিস্টার

২০১৭-১৮

 

 

 

 

 

 

 

২.

ব্যাচ ১১: ২য় বর্ষ ৩য় সেমিস্টার

২০১৭-১৮

০৭-০১-১৮

 

০১-০৩-১৮

 

০২-০৫-১৮

 

 

ব্যাচ ১১: ২য় বর্ষ ৪র্থ সেমিস্টার

২০১৭-১৮

 

 

 

 

 

 

 

৩.

ব্যাচ ১০: ৩য় বর্ষ ৫ম সেমিস্টার

২০১৭-১৮

১৮-০১-১৮

 

১১-০৩-১৮

 

০৬-০৫-১৮

 

 

ব্যাচ ১০: ৩য় বর্ষ ৬ষ্ঠ সেমিস্টার

২০১৭-১৮

 

 

 

 

 

 

 

৪.

ব্যাচ ৯: ৪র্থ বর্ষ ৭ম সেমিস্টার

২০১৭-১৮

০৭-০১-১৮

 

০১-০৩-১৮

 

০২-০৫-১৮

 

 

ব্যাচ ৯: ৪র্থ বর্ষ ৮ম সেমিস্টার

২০১৭-১৮

 

 

 

 

 

 

 

৫.

ব্যাচ ৮: এম.এ. (সাহিত্য) ১ম  সেমিস্টার

২০১৭-১৮

০৭-০১-১৮

 

০১-০৩-১৮

 

০২-০৫-১৮

 

 

ব্যাচ ৮: এম.এ. (সাহিত্য) ২য়  সেমিস্টার

২০১৭-১৮

 

 

 

 

 

 

 

৬.

ব্যাচ ৮: এম.এ. (ফলিত ভাষাতত্ত্ব ও ইংরেজী ভাষা শিক্ষণ) ১ম  সেমিস্টার

২০১৭-১৮

০৭-০১-১৮

 

০১-০৩-১৮

 

০২-০৫-১৮

 

 

ব্যাচ ৮: এম.এ. (ফলিত ভাষাতত্ত্ব ও ইংরেজী ভাষা শিক্ষণ) ২য়  সেমিস্টার

২০১৭-১৮